স্বামী স্ত্রী দুইজনেরই কি একসাথে হরমোন নিঃসৃত হতে হবে যদি সন্তান নিতে চাই?

স্বামী স্ত্রী দুইজনেরই কি একসাথে হরমোন নিঃসৃত হতে হবে যদি সন্তান নিতে চাই?

দেহের সব চাইতে উর্বরতম সময়ে, -যখন ডিম্বানু পরিপক্ব অবস্থায় শুক্রাণু সাথে মিলিত হওয়ার জন্য উদ্বগ্রিব থা’কে, তখন যে কোন ভাবে’ পুরু’ষের শুক্রাণু নারী ডিম্বাণুর সাথে নিষিক্ত করতে পার’লে-ই সে নারী গর্ভবতী হতে পারে।

তবে অনুমান ক”রা যাই এই সময় ‘টা হলো পিরিয়’ডের ১৪তম দিন। এই দিনে নারী’র শরীর থেকে একটি পরিপূর্ণ ডিম্বাণু পরিপক্বতা লাভ করার পরে সেটি ফেলোপিয়ান টিউব দিয়ে গড়িয়ে গড়িয়ে সামনে’র দিকে অগ্রসর হতে থাকে এবং এক জায়গায় গি’য়ে শুক্রাণুর জন্য অপেক্ষা করে। আর এই ডিম্বাণু সেখানে ৩৬ ঘন্টার মতো বেঁচে থাকে।

যদি এর মধ্যে কোন শুক্রাণু দ্বারা নিষিক্ত হওয়ার সুযোগ না পেয়ে থাকে, তাহ”লে সেটা’ গড়াতে গড়াতে সা’মনে গিয়ে জরায়ু”র তৃতীয় স্ত’রের সাথে আশ্রয় নেয়। তার’পর সেটা জরায়ুর তৃতীয় স্তর খসে পড়ার ভেতরে পিরিয়ড হিসেবে বাইরে বেরিয়ে আসে।

যদি সেটা ফেলোপিয়ান টিউবের ভেতর শুক্রাণু সাথে নিষিক্ত হতে পারে তাহলে শুক্রাণু এবং’ ডিম্বাণুর’ নিউক্লিয়াস এক হয়ে সেখা”নে জাইগোট’ তৈরী করে এবং সেটা সামনে গি”য়ে জরায়ু তে আশ্রয় নেয়। এর পর হরমোনের প্রভাবে পিরিয়ড চক্র বন্ধ হ’য়ে যায়,

যার ফলে স”হজে’ই সেখানে” সন্তান” বড় হওয়ার সুযোগ পায়। সন্তা’ন নিতে চাইলে পিরিয়’ডের ১৪ তম ‘দি’নের আগের কিছু দিন ‘এবং প’রের কিছু দিন নিয়মি”ত সহবাস ক’রা উচিত। ‘ তবে সহবাসে নারী- পুরুষ উভয়ে যৌন সুখ লাভ করারটা একজনের উপর অপর জনের দায়িত্ব এবং অধিকার বলা যায়। তাদের দুজনের উপর দুজনের আগ্রহ আর আস্থা, বৃদ্ধিতে যৌন তৃপ্তি বিপুল

পরিমান ভূমিকা রাখে। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই পুরুষের আগে ‘বীর্যপাত হওয়ার কারণে বেশির ভা’গ নারী যৌন অনুভূতির তৃ’প্তি না নিয়েই সন্তান ধারণ করে। সে ক্ষেত্রে পুরুষের উ’চিত আগে নারী কে বিভিন্ন কায়দায় পদ্ধতিতে উত্তেজি”ত করার পর সঙ্গমে মে”তে ওঠা। ‘ সর্বোপরী এটাই ব’লবো সন্তান’ ধারণের জন্য একজন ‘নারী উপযুক্ত সময়ে ‘যে কোন ভাবে পুরুষের

‘শুক্রাণু স্ত্রী জরায়ু মুখে পৌছাতে পারলে সে নারী গর্ভবতী হওয়ার সম্ভবনা থাকে। ত’বে এক্ষেত্রে নারী ‘দেহ সন্তান ধার’নের জন্য শারী’রিক ভাবে সু’স্থ এবং পুরুষ ব্যাক্তির শুক্রাণু সন্তান জন্মদা’নের জন্য উপযুক্ত হতে’ হবে।

 

দেহের সব চাইতে উর্বরতম সময়ে, -যখন ডিম্বানু পরিপক্ব অবস্থায় শুক্রাণু সাথে মিলিত হওয়ার জন্য উদ্বগ্রিব থা’কে, তখন যে কোন ভাবে’ পুরু’ষের শুক্রাণু নারী ডিম্বাণুর সাথে নিষিক্ত করতে পার’লে-ই সে নারী গর্ভবতী হতে পারে।

তবে অনুমান ক”রা যাই এই সময় ‘টা হলো পিরিয়’ডের ১৪তম দিন। এই দিনে নারী’র শরীর থেকে একটি পরিপূর্ণ ডিম্বাণু পরিপক্বতা লাভ করার পরে সেটি ফেলোপিয়ান টিউব দিয়ে গড়িয়ে গড়িয়ে সামনে’র দিকে অগ্রসর হতে থাকে এবং এক জায়গায় গি’য়ে শুক্রাণুর জন্য অপেক্ষা করে। আর এই ডিম্বাণু সেখানে ৩৬ ঘন্টার মতো বেঁচে থাকে।

যদি এর মধ্যে কোন শুক্রাণু দ্বারা নিষিক্ত হওয়ার সুযোগ না পেয়ে থাকে, তাহ”লে সেটা’ গড়াতে গড়াতে সা’মনে গিয়ে জরায়ু”র তৃতীয় স্ত’রের সাথে আশ্রয় নেয়। তার’পর সেটা জরায়ুর তৃতীয় স্তর খসে পড়ার ভেতরে পিরিয়ড হিসেবে বাইরে বেরিয়ে আসে।

যদি সেটা ফেলোপিয়ান টিউবের ভেতর শুক্রাণু সাথে নিষিক্ত হতে পারে তাহলে শুক্রাণু এবং’ ডিম্বাণুর’ নিউক্লিয়াস এক হয়ে সেখা”নে জাইগোট’ তৈরী করে এবং সেটা সামনে গি”য়ে জরায়ু তে আশ্রয় নেয়। এর পর হরমোনের প্রভাবে পিরিয়ড চক্র বন্ধ হ’য়ে যায়,

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.